1. liton@somoyerbarta24.net : জাগরন বার্তা২৪ ডটকম ডেস্কঃ : জাগরন বার্তা২৪ ডটকম ডেস্কঃ
  2. admin@codeforhost.com : News Desk :
করোনার প্রাদুর্ভাব হয়তো কখনোই শেষ হবে নাঃ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা | জাগরন বার্তা
বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:১৩ অপরাহ্ন
১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনার প্রাদুর্ভাব হয়তো কখনোই শেষ হবে নাঃ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

রিপোর্টার: জাগরন বার্তা২৪ ডটকম ডেস্কঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ মে, ২০২০
  • ১৩৬ বার পাঠিত
144022coronavirus kalerkantho

সময়ের বার্তা ২৪.নেট নিউজ ডেস্কঃ বিশ্বব্যাপী মহামারিতে পরিণত হওয়া করোনাভাইরাস হয়তো কখনোই নির্মূল হবে না বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। বুধবার জেনেভায় নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে সংস্থাটির বিশেষজ্ঞ মাইক রায়ান এই সতর্কতা জানিয়েছেন। টিকা পাওয়া গেলেও ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক প্রচেষ্টার দরকার পড়বে বলে মনে করেন তিনি।

 

ডা. মাইক রায়ান বলেন, ‘বিষয়টি আলোচনার টেবিলে তোলা গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এই ভাইরাস মানবজাতির জন্য আরেকটি এনডেমিক (কোনো আঞ্চলিক বা পেশার সঙ্গে যুক্ত রোগবিশেষ) হতে যাচ্ছে। এর প্রাদুর্ভাব হয়তো কখনোই শেষ হবে না।’

 

তিনি বলেন, ‘আমি মনে করছি, আমাদের বাস্তববাদী হওয়াটা গুরত্বপূর্ণ। কেননা এই ভাইরাস কবে অদৃশ্য হবে কেউ তা অনুমান করতে পারবে বলে মনে হয় না। এছাড়া কবে এর প্রকোপ দূর হবে তারও কোনো দিনক্ষণ নেই। এই রোগ হয়তো আমাদের জন্য দীর্ঘস্থায়ী এক সমস্যা হিসেবে থেকে যাবে, নাও থাকতে পারে।’

 

জরুরি বিভাগের ওই প্রধান বলেন, ‘আমাদের নিয়মতান্ত্রিক ঝুঁকি মূল্যায়ন পদ্ধতির মাধ্যমে জাতীয়, আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক স্তরে সতর্কতার মাত্রা হ্রাস করতে পারি আমরা। কিন্তু এই মুহুর্তে, ঝুঁকি সর্বোচ্চ বলেই বিবেচনা করছি। সতর্কতার মাত্রা হ্রাস করতে হলে ভাইরাসটির ওপর উল্লেখযোগ্য নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে হবে।’

 

বিশ্বে করোনার সম্ভাব্য এক শতাধিক ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছে। এগুলোর মধ্যে বেশ কয়েকটির (৮টি) ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল অর্থাৎ মানবদেহে প্রয়োগ করা হয়েছে ইতোমধ্যে। কিন্তু ডা. মাইক রায়ান বলছেন, হামসহ অন্যান্য অনেক রোগেরও তো ভ্যাকসিন রয়েছে, কিন্তু সেসব রোগ কিন্তু এখনো নির্মূল হয়ে যায়নি।

 

তবে উদ্যোগ নেওয়া হলে ভাইরাসটি এখনও নিয়ন্ত্রণ সম্ভব বলে মনে করেন ডব্লিউএইচও মহাপরিচালক টেড্রোস আডানোম গেব্রিয়াসিস। তিনি বলেন, ‘কৌশল আমাদের হাতে, দায়িত্ব সবার আর বিশ্ব জোড়া এই মহামারি অবসানে আমাদের সবারই অবদান রাখা উচিত।’ অনলাইন ব্রিফিংয়ে ডব্লিউএইচও’র এপিডেমিওলোজিস্ট মারিয়া ভ্যান কেরকোহব বলেন, ‘আমাদের মানসিকতার মধ্যে এটা নিয়ে নেওয়া দরকার যে, এই মহামারির অবসান হতে বেশ খানিকটা সময় লাগবে।’

 

করোনাভাইরাসের নিয়ন্ত্রণ রোধে আরোপ করা বিধিনিষেধের কারণে বিশ্ব জুড়ে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড অচল হয়ে পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বেশ কয়েকটি দেশ ধারাবাহিকভাবে লকডাউন শিথিল করা শুরু করেছে। এছাড়া নিজ নিজ দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড কিভাবে ও কখন আবারও শুরু করা যায় তা নিয়ে চিন্তাভাবনা শুরু করেছেন বিভিন্ন দেশের নেতারা।

 

দ্বিতীয় দফা সংক্রমণের ঝুঁকি এড়িয়ে বিধিনিষেধ শিথিল করার কোনও উপায় নেই বলে সতর্ক করেন ডব্লিউএইচও মহাপরিচালক টেড্রোস আডানোম গেব্রিয়াসিস। তিনি বলেন, ‘অনেক দেশ ভিন্ন ভিন্ন পদক্ষেপের কথা বিবেচনা করতে পারে। তবে এখনও আমাদের সুপারিশ হলো যে কোনও দেশেরই সম্ভাব্য সর্বোচ্চ পর্যায়ের সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।’ ড. মাইক রায়ান বলেন, ‘কেউ কেউ যাদুকরী চিন্তাভাবনায় মনে করছেন লকডাউন যথাযথভাবে কাজে এসেছে আর তা প্রত্যাহার হলেও ভালোভাবে কাজ করবে। এ দুটি চিন্তায় বিপদের আশঙ্কায় পূর্ণ।’

 

যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির বুধবার রাতে হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের ১৮৮ দেশ ও অঞ্চলে ৪৩ লাখ ১৩ হাজার মানুষের দেহে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু ঘটেছে ২ লাখ ৯৪ হাজারের।(সূত্রঃ সঃকঃ)

 

 

# সম্পাদনায়ঃ বার্তা সম্পাদকঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম।

Facebook Comments

লাইক দিয়ে সবার আগে. সব খবর এর আপডেট

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের ফেসবুক পেজ

© All rights reserved © 2020 JagoronBarta24.com
Theme Customized By codeforhost.Com
codeforhost-somoyerba149