1. liton@somoyerbarta24.net : জাগরন বার্তা২৪ ডটকম ডেস্কঃ : জাগরন বার্তা২৪ ডটকম ডেস্কঃ
  2. admin@codeforhost.com : News Desk :
নওগাঁ-বদলগাছী সড়ক বেহাল দশা ঝুঁকি নিয়ে চলাচল | জাগরন বার্তা
বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৮:১২ পূর্বাহ্ন
৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
দৌলতপুরে লকডাউন কার্যকর করতে মাঠে নেমেছে উপজেলা প্রশাসন রমজানে দাঁত ও মুখের সুস্থতা ডাঃ তনুশ্রী তরফদারের পরামর্শ ১ বছর পুর্তিতে দৌলতপুর-১৮৬০ গ্রুপের পক্ষহতে মাস্ক বিতরণ দৌলতপুর পোল্ট্রি খামার এসোশিয়েশনের কমিটি গঠন শাহ আলম সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক দৌলতপুরে লকডাউন কার্যকর ও দ্রব‍্যমূল‍্যর দাম সহনীয় রাখতে মাঠে নেমেছে প্রশাসন ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগমকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রী কৃষকের মাঝে কৃষি যন্ত্র বিতরণ দৌলতপুরে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দৌলতপুর উপজলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে সাংবাদিকদর সৌজন্য সাক্ষাৎ দ্বিতীয় দফায় লকডাউন সচেতন করতে দৌলতপুর  উপজেলা প্রশাসন,পুলিশ প্রসাশন,স্বাস্থ‍্য বিভাগ জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিক

নওগাঁ-বদলগাছী সড়ক বেহাল দশা ঝুঁকি নিয়ে চলাচল

রিপোর্টার: মাহাবুব হাসান মারুফ, রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ২২৬ বার পাঠিত
inbound7905960197471748527

সংস্কারের অভাবে নওগাঁ-বদলগাছী সড়কের এখন বেহাল অবস্থা। পিচ উঠে সড়কটির অসংখ্য স্থানে ভাঙাচোরা, খানাখন্দ ও গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে ছোটখাট দুর্ঘটনার পাশাপাশি ভোগান্তি পোহাচ্ছে মানুষ।

বালু, ইট ও পণ্যবাহী ভারী ট্রাক চলাচল করায় সড়কটির অধিকাংশ স্থান দেবে গেছে। আবার কোথাও তৈরি হয়েছে খানাখন্দ। বিধ্বস্ত রাস্তাটি সংস্কার না হওয়ায় প্রতিদিনই এসব ভাঙাচোরা, খানাখন্দ ও গর্তের পরিমান বেড়ে সড়কটির অবস্থা আরও খারাপ হচ্ছে। বৃষ্টি হলে গর্ত ও খানাখন্দে জমা পানিতে আর শুষ্ক সময়ে ধুলাবালির দুর্ভোগের মধ্য দিয়েই ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয়।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) নওগাঁ কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, নওগাঁ থেকে বদলগাছী উপজেলা সদর পর্যন্ত সড়কটির দৈর্ঘ্য ১৮ কিলোমিটার। সর্বশেষ ২০১৫ সালে সড়কটি সংস্কার ও প্রশস্তকরণ কাজ করা হয়। এরপর সড়কটিতে আর কোনো সংস্কার কাজ করা হয়নি। নওগাঁ থেকে এই সড়ক দিয়েই বদলগাছীর ঐতিহাসিক পাহাড়পুর বৌদ্ধবিহার যেতে হয়। এছাড়া নওগাঁ পতœীতলা, সাপাহার ও ধামইরহাট উপজেলাবাসীর চলাচলের প্রধান রাস্তা এটি। রাস্তাটি ২২ টনের বেশি যান চলাচলের উপযোগী নয়, কিন্তু ৩০ থেকে ৪০ টন ওজনের পণ্যবাহী যানও চলাচল করছে। প্রতিদিন সড়কটি দিয়ে ১০ থেকে ১২ হাজার যানবাহন চলাচল করে।

সরেজিমনে দেখা যায়, সড়কটির পুরো ১৮ কিলোমিটার অংশ জুড়েই অসংখ্য খানাখন্দ তৈরি হয়েছে। রাস্তাটির বেশ কিছু স্থানে দেবে গিয়ে এবং পিচ উঠে গিয়ে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হযেছে। এসব গর্তে পড়ে ভারী পণ্যবাহী ট্রাক প্রায়ই আটকে যাচ্ছে। কোথাও রাস্তায় বড় ঢিবির তৈরি হয়েছে। পাহাড়পুর বাজার, কীর্ত্তিপুরবাজার, বালুভরা, খলসী মোড়, চাংলা, বদলগাছী খাদ্যগুদাম মোড়, হাসপাতাল মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে সড়কটির অবস্থা সবচেয়ে খারাপ।  খানাখন্দে ভরা সড়কের প্রায়ই ছোটখাট দুর্ঘটনা ঘটছে।

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার কাদীবাড়ী এলাকার বাসিন্দা ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক ইসলাম হোসেন বলেন, পাঁচ বছর আগেই সড়কটি সংস্কার ও প্রশস্ত করা হয়। এরপর মাঝেমাঝে গর্ত ভরাটকাজ ছাড়া সড়কটিতে তেমন কোনো উন্নয়নকাজ হয়নি। ফলে সড়কটি যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। খানাখন্দের কারণে প্রায়ই অটোরিকশার বিভিন্ন যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যায়।

গতকাল শনিবার সকালে নওগাঁ-বদলগাছী সড়কের চাংলা এলাকায় দেখা যায়, একটি বালুবাহী ট্রাক রাস্তার গর্তে আটকা পড়েছে। ট্রাকটি সেখানে আটকা পড়ায় তৈরি হয়েছে যানজট। গর্তে আটকা পড়া ওই ট্রাকের চালক এনামূল হোসেন বলেন, ‘সড়কের পিচ ও খোয়া উঠে গিয়ে কাচা মাটি বের হয়ে পড়েছে। এর ফলে ট্রাকের চাকা দেবে গেছে। এখন বারবার চেষ্টা করেও গাড়ি আর তুলতে পারছি না। বালুসহ ট্রাকের ওজন প্রায় ৩০ টনের ওপরে হবে। এখন মনে হচ্ছে এই ট্রাক গর্ত থেকে তোলার জন্য ট্রাকের বালু নামিয়ে ফেলতে হবে।’

আদ দ্বীন পরিবহনের বাসের চালক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘সারা রাস্তায় গর্ত আর ভাঙাচোরা। রাস্তার এই অবস্থার কারণে আগে যেখানে নওগাঁ থেকে বদলগাছী যাইতে সর্বোচ্চ ২০ মিনিট সময় লাগতো এখন সেখানে ৫০ থেকে ৬০ মিনিট সময় লাগতেছে। খানাখন্দের কারণে গাড়ি প্রচুর ঝাঁকুনি খায়। গাড়ির ঝাঁকুনিতে শরীর বিষের মতো ব্যথা হইয়া যায়।’

নওগাঁ সওজ আঞ্চলিক কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান বলেন, এই আঞ্চলিক সড়কে ছয় চাকার পণ্যবাহী ট্রাকের সর্বোচ্চ ধারণক্ষমতা (গাড়ির ওজনসহ) ১৫ টন এবং ১০ চাকার ট্রাকের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ধারণক্ষমতা ২২ টন। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে দেখা গেছে, ট্রাকগুলো ধারণক্ষমতার চেয়ে অতিরিক্ত পণ্য পরিবহন করছে। পণ্যসহ কোনো কোনো ট্রাকের ওজন ৩০ থেকে ৪০ টনের ওজন হয়ে পড়ে। ভারী পণ্যবাহী যানবাহনের কারণে সড়ক দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। নওগাঁ-বদলগাছী সড়কটি নষ্ট হয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ ভারী পণ্যবাহী ট্রাক। অধিকাংশ ট্রাকই বালুবাহী।

তিনি আরও বলেন, এই সড়কটি সহ নওগাঁর পাঁচটি আঞ্চলিক সড়ক সংস্কারের জন্য প্রকল্প প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। তবে আপাতত গাড়ির চাকা যাতে চলতে পারে সেজন্য রাস্তাটির বেশি খারাপ অংশে ইট-খোয়া ফেলে সংস্কার কাজ চলছে। খুব দ্রুতই সড়কটিতে সাময়িক এই সংস্কার কাজ শুরু করা হয়েছে , সড়কটিতে অপাতত চলাচলের অবস্থায় আনার চেষ্টা চলছে।#

Facebook Comments

লাইক দিয়ে সবার আগে. সব খবর এর আপডেট

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

আমাদের ফেসবুক পেজ

© All rights reserved © 2020 JagoronBarta24.com
Theme Customized By codeforhost.Com
codeforhost-somoyerba149